অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার-23

অনিদ্রা একটি সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা। যা মানসিক চাপ, উদ্বেগ এবং বিভিন্ন দুশ্চিন্তার কারণে হয়ে থাকে। নিদ্রাহীনতায় ভুগলে রাতে ঘুমাতে অসুবিধা হয় এবং ঘুম খারাপ হয়। যার ফলে আপনার মনোযোগে ঘাটতি এবং মেজাজ এর পরিবর্তন ও বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।আজ আমরা এই প্রবন্ধে অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার সম্বন্ধে আলোচনা করব।

ঘুম হলো একজন মানুষের সুস্থ থাকার অন্যতম চাবিকাঠি। তাই ৭-৮ ঘন্টা ঘুমের অবশ্যই প্রয়োজন একটি প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের জন্য। তার থেকে কম হলে স্বার্থের ক্ষতি হতে পারে। একটি শিশুর কমপক্ষে ৯-১৫ ঘন্টা ঘুমের প্রয়োজন যা শিশুকে বেড়ে উঠতে সাহায্য করে।প্রত্যেক মানুষই কখনো না কখনো অনিদ্রার শিকার হয়ে থাকেন। তাই অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার জানা অতি আবশ্যক।

অনিদ্রা কি ? (What is insomnia?)

অনিদ্রা বা insomnia হলো একটি সাধারন ঘুমের ব্যাধি যা মানুষের ঘুমাতে বা ঘুমিয়ে থাকতে অসুবিধা সৃষ্টি করে। অনিদ্রাকে ইংরেজিতে insomnia বলা হয়। এটি একটি বড় সমস্যা যা কয়েক দিন স্থায়ী হতে পারে বা আবার কয়েক মাস ও স্থায়ী হতে পারে।

অনিদ্রার লক্ষণ (Symptoms of insomnia)

কোন কোন লক্ষণ গুলি দেখে বুঝব, যে আমাদের অনিদ্রা রোগে আক্রান্ত।সেগুলি হল…

  • বিছানায় শোবার পর দীর্ঘ সময় ধরে ঘুম না আসা।
  • বারবার মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যাওয়া।
  • তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠে যাওয়া।
  • ঘুমোতে গিয়ে আসক্তি বোধ করা।
অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার

অনিদ্রায় সমস্যা (Insomnia problems)

অনিদ্রার কারণে আমাদের অনেকগুলি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। সেগুলি হল….

  • দিনের বেলায় ঘুম লাগে।
  • শরীর দুর্বল বা শক্তির অভাব।
  • মেজাজ খিটখিটে বা বিরক্ত হয়ে ওঠে।
  • অমনোযোগ অস্বস্তি হতাশা ও উদ্বেগ প্রভাব দেখা যায়।
  • স্মৃতিভ্রংশ হতে পারে।

অনিদ্রায় ঝুকি (Risk of insomnia)

  • শারীরিক ঝুঁকি: অনিদ্রার কারণে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্থূলতা, দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, স্মৃতিশক্তি হ্রাস, মনোযোগের অভাব ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • মানসিক ঝুঁকি: বিষণ্ণতা, উদ্বেগ, খিটখিটে মেজাজ, আত্মহত্যার প্রবণতা ইত্যাদি মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • দুর্ঘটনার ঝুঁকি: অনিদ্রার কারণে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনা, যানবাহন দুর্ঘটনার ঝুঁকি বেড়ে যায়।
  • পারিবারিক ঝুঁকি : পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম না হওয়ার জন্য পরিবারের অন্যান্য ব্যক্তির সাথে কথোপকথন এ সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।
অনিদ্রায় ঝুকি


অনিদ্রা হওয়ার কারণ (Causes of insomnia)

অনিদ্রা একটি সাধারণ সমস্যা। সকলেই একবার না একবার অনিদ্রা সম্মুখীন হয়ে থাকেন। অনিদ্রার কারণে শরীর-মন উভয়ই ক্ষতি হয়। অনিদ্রার অনেক কারণ রয়েছে। কিছু সাধারণ কারণ হল :

  • মানসিক চাপ বা উদ্বেগ: মানসিক চাপ বা উদ্বেগ অনিদ্রার অন্যতম প্রধান কারণ। পরীক্ষা, চাকরির ইন্টারভিউ, নতুন চাকরিতে যোগদান, দাম্পত্য কলহ, ঘনিষ্ঠের মৃত্যু ইত্যাদি কারণে মানসিক চাপ বা উদ্বেগ দেখা দিতে পারে। এসব কারণে অনিদ্রার সমস্যা হতে পারে।
  • শারীরিক অসুস্থতা: কিছু শারীরিক অসুস্থতার কারণেও অনিদ্রার সমস্যা হতে পারে। যেমন, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস ইত্যাদি রোগের কারণে অনিদ্রার সমস্যা হতে পারে।
  • অ্যালকোহল বা মাদকদ্রব্যের সেবন: অ্যালকোহল বা মাদকদ্রব্যের সেবনের জন্য অনিদ্রার কারণ হতে পারে। অ্যালকোহল খাওয়ার পর প্রথমে ঘুম আসতে পারে, কিন্তু পরে তা ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। মাদকদ্রব্যের ব্যবহারের ফলে ঘুমের ব্যাঘাত, মাঝরাতে ঘুম থেকে ওঠা, ঘুমের মধ্যে ভয়ংকর স্বপ্ন দেখা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া: কিছু ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় জন্য অনিদ্রার সমস্যা হতে পারে। যেমন, অ্যান্টিডপ্রেসেন্ট, অ্যান্টিসাইকোটিক, হৃদরোগ নিয়ন্ত্রণের ঔষধ ইত্যাদি ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় অনিদ্রার সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • ঘুমের অভ্যাসের পরিবর্তন: ঘুমের অভ্যাসের পরিবর্তনও অনিদ্রার কারণ হতে পারে। যেমন, ঘুমের সময় বা ঘুমের পরিবেশের পরিবর্তন অনিদ্রার কারণ হতে পারে।ঘুমানোর সময় বেশি গরম, বা ঠাণ্ডা কারণেও ঘুমের সমস্যা দেখা দেয়।
  • ব্যক্তিগত জীবনে পরিবর্তন: ব্যক্তিগত জীবনে পরিবর্তন, যেমন নতুন বাড়িতে বা নতুন শহরে যাওয়া, নতুন চাকরিতে যোগদান ইত্যাদি কারণেও অনিদ্রার সমস্যা হতে পারে।নতুন মানুষজনের সঙ্গে বসবাস করাতেও এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।
অনিদ্রার প্রতিকার (Remedies for insomnia)

অনিদ্রার প্রতিকার (Remedies for insomnia)

অনিদ্রার প্রতিকারকে আমরা সাধারণত দুই ভাগে ভাগ করতে পারি। সেগুলি হল :

অনিদ্রার ঘরোয়া প্রতিকার

  • প্রতিদিন একই সময় ঘুমানো: প্রতিদিন রাতে একই সময়ে ঘুমাতে যেতে হবে এবং একটি নির্দিষ্ট সময়ে ঘুম থেকে জেগে উঠতে হবে। সময় ধরে ঘুমানো, অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে শারীরিক সুস্থতা বজায় থাকে।যার ফলে, আপনি আপনার জীবনে দ্রুত এগিয়ে যেতে পারেন।
  • চা-কফি থেকে দূরে থাকা: চা বা কফি খেলে অনেকেই ঘুমের সমস্যা হয়। প্রফেসর ওয়াকার বলেছেন ঘুমাতে যাবার 12 ঘন্টা আগে এইসব খাওয়া বন্ধ করা উচিত। এর প্রভাব শরীরের মধ্যে অনেকক্ষণ থেকে যায়।
  • নেশা ত্যাগ করা: নিকোটিন বা অ্যালকোহল থেকে দূরে থাকুন। কারণ নিকোটিনের অভাবে আপনার শরীর উত্তেজিত হতে পারে। আর অ্যালকোহল সেবন, প্রথমে দিকে আপনার ঘুমের সমস্যা দেখা না দিলেও পরে সমস্যা সম্মুখীন হতে হবে।
  • রাতে না জাগা: অনেকেই আছেন যারা এখন কার সময় রাতে কাজ করেন এবং দিনের বেলায় ঘুমিয়ে, রাতের ঘুমের অভাব পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু রাতে কাজ করার জন্য অনেকেই স্বাস্থ্যজনিত সমস্যায় পড়তে পারেন কারণ দিনের বেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম বা গভীরতম ঘুম কখনোই হয় না, তাই রাতের ঘুমের মতো সুফল দিতে পারেনা শরীরকে।
  • খাদ্যাভ্যাস: বর্তমান সময়ে অনেকেই জানেন না যে, ঘুমের সমস্যার পিছনে খাদ্য অভ্যাসের ভূমিকা অনেকটাই। তাই একই সময় ধরে খাদ্য খাওয়া আবশ্যক। খেয়াল রাখতে হবে ম্যাগনেসিয়াম যুক্ত খাবার রাতে খাওয়া খুবই ভালো।কারণ ম্যাগনেসিয়াম হলো একটি খনিজ পদার্থ যা আমাদের শরীরের পেশি কে শিথিল করে এবং ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। বাদাম জাতীয় খাদ্যের মধ্যে ম্যাগনেসিয়াম থাকে, এগুলি খেলে রাতে ভাল উপকার পাবেন। এর সাথে আপনি কলা, গরম দুধ, মধু ইত্যাদি নিতে পারেন।ঘুমানোর আগে গরম দুধ পান করুন।গরম দুধে থাকা ট্রিপটোফ্যান নামক অ্যামিনো অ্যাসিড ঘুম আনতে সাহায্য করে।
  • ব্যায়াম করুন: প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করুন। তবে ঘুমোতে যাবার ৩-৪ ঘন্টা আগে ব্যায়াম করা উচিত। নিয়মিত ব্যায়াম করলে আপনার অনিদ্রা সমস্যা কখনো সম্মুখীন হতে হবে না।

অনিদ্রার অন্যান্য প্রতিকার

ল্যাপটপ, মোবাইল
  • অনিদ্রার জন্য ওষুধ: অনিদ্রার জন্য কিছু ওষুধও রয়েছে। তবে এই ওষুধগুলি চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া খাওয়া উচিত নয়।
  • প্রযুক্তি ত্যাগ করুন: ল্যাপটপ, মোবাইল ইত্যাদি শুতে যাওয়ার আগে বা শোয়ার সময় ব্যবহার করবেন না। প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য আমাদের মস্তিষ্ক উত্তেজিত হয়ে ওঠে এবং চোখ থেকে ঘুম তাড়িয়ে দেয়। তাই এগুলি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার নিয়ন্ত্রণে কিছু টিপস

  • ঘুমানোর আগে কঠোর শারীরিক পরিশ্রম করবেন না।
  • ঘুমানোর আগে ভারী খাবার খাবেন না।
  • ঘুমানোর আগে বাইরের শব্দ এবং আলো থেকে দূরে থাকুন।
  • ঘুমানোর আগে শান্ত পরিবেশে থাকুন।
  • অনিদ্রার সমস্যা দেখা দিলে নিজে নিজে ওষুধ খাবেন না।
  • অনিদ্রার সমস্যা বেশি দিন স্থায়ী হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার প্রশ্ন

  • প্রশ্ন ১: অনিদ্রার সবচেয়ে সাধারণ কারণ কি?
  • উত্তর: অনিদ্রার মূল কারণগুলির মধ্যে চিন্তা মুক্তির অভাব অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সকারাত্মক চিন্তা, মানসিক চাপ, এবং মানসিক বাধা অনিদ্রার সাধারিত কারণের মধ্যে থাকতে পারে।
  • প্রশ্ন ২: কিভাবে চিন্তামুক্তি অনিদ্রা আমরা পেতে পারি?
  • উত্তর: অনিদ্রার কারণগুলির মধ্যে দৈহিক এবং মানসিক চাপ প্রধান হয়ে উঠতে পারে। তাই সর্বদা দৈহিক এবং মানসিক চাপ কমাতে হবে এবং কম করতে হবে।
  • প্রশ্ন ৩: কি করে সঠিক নিদ্রা প্রাপ্ত করা যায়?
  • উত্তর:সঠিক নিদ্রা প্রাপ্ত করার জন্য প্রতিদিন নির্ধারিত ঘন্টার জন্য বিশেষভাবে আমাদের চলা জরুরি। রাতে শুতে যাওয়ার আগে মোবাইল বা কম্পিউটার ব্যবহার করবেন না। দৈহিক ব্যায়াম করা উচিত। অন্ধকার যুক্ত পরিবেশ বেছে নেওয়া উচিত।
  • প্রশ্ন ৪: অনিদ্রা সমস্যার প্রতি ঔষধ সেবনের কি মানসিক উপকারিতা আছে?
  • উত্তর: অনিদ্রা সমস্যার সমাধানে যদি আপনি ওষুধ সেবন করেন তবে এটি আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সাহায্য করতে পারে। তবে অবশ্যই ডাক্তারি পরামর্শ করে ওষুধ সেবন করবেন। তবে, কোনও ঔষধ সেবন করার পরে মোটর চালানোর কাজে সতর্ক থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
  • প্রশ্ন ৫: ঘুম বেশি হলে কি ক্ষতি হয়?
  • উত্তর: যদি কোন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি প্রতিদিন 9 ঘন্টা বা তার বেশি ঘুমায়, সেক্ষেত্রে হৃদরোগ, স্টোক ইত্যাদি রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

উপসংহার

এই ব্লগ পোস্টে, অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার সংক্রান্ত বিস্তারিত বর্ণনা করেছি। এই রোগে থেকে দূরে থাকতে বা রোগীকে কিভাবে সারিয়ে তোলা যায়,সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আমাদের লেখাটির “অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার” যদি আপনার কাছে উপকারী মনে হয় তাহলে অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।আর আমাদের লেখাটা যদি আপনার কাছে উপকারী মনে হয় তাহলে প্লিজ এটিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বন্ধু- বান্ধব দের সাথে সোশ্যাল মিডিয়া শেয়ার করবেন।এছাড়া আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইট থেকে নিয়মিত বিভিন্ন ধরনের ব্লগিং টিপস এবং ট্রিক্স পেতে চান? তাহলে ভিজিট করুন ধন্যবাদ।বিশেষত আপনারা কোন ধরনের আর্টিকেল চাইছেন যদি আমাদের কমেন্ট এ জানান তাহলে আমরা সেই বিষয়ে আর্টিকেল আনার চেষ্টা করব l

নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে ক্লিক করুন

ভারতবর্ষের যে কোন প্রান্তের পিনকোড সার্চ করার জন্য ক্লিক করুন

#অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার #অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার #অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার #অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার #অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার #অনিদ্রার কারণ ও প্রতিকার

আরো পড়ুন…..

#শরীরের চর্বি অতিরিক্ত থাকলে কী ক্ষতি হতে পারে #পরীক্ষার আগে শিক্ষার্থীদের স্মৃতিশক্তির জন্য খাবার গুরুত্বপূর্ণ #ডায়াবেটিসের চিকিৎসা #নিউমোনিয়া হওয়ার কারণ